সমসাময়িক

বাংলাদেশ এবং ভারত

মুজিব-ইন্ধিরা এবং পরবর্তী সময়ে শেখ হাসিনা নরেন্দ্র মোদি।

৭টি সমঝোতা স্মারক সই

মুজিব-ইন্ধিরা এবং বর্তমান সময়ে শেখ হাসিনা এবং নরেন্দ্র মোদি। দুই দেশের দুই সরকার প্রধান সব সময়েই বিশ্বাস করে শান্তিতে। দুই দেশের পারষ্পারিক উন্নয়ন এবং বহিবিশ্বে দুই দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল রাখতে সব সময় একই সাথে কাজ করে যাচ্ছে এই দুই সরকার প্রধান। আর ভারত যে বাংলাদেশের নিকটতম প্রতিবেশী দেশ তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। আর অন্যদিকে বাংলাদেশ যে ভারতের উন্নয়নে একমাএ সহযোগী দেশ তাও প্রমানিত।

এরি ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে ৭ সমঝোতা স্মারক আবারো সই হলো

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির উপস্থিতিতে দুই দেশের প্রতিনিধিদের মধ্যে ৭টি সমঝোতা স্মারক সই হয়েছে। মঙ্গলবার (৬ সেপ্টেম্বর) দুপুরে শেখ হাসিনা ও নরেন্দ্র মোদির বৈঠক শেষে এসব সমঝোতা স্বারক সই হয়।

সমঝোতা স্মারকগুলো হলো:

১. কুশিয়ার নদী থেকে বাংলাদেশের ১৫৩ কিউসেক পানি প্রত্যাহারের সমঝোতা স্মারক।

২. বৈজ্ঞানিক সহযোগিতার বিষয়ে ভারতের বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদের (সিএসআইআর) সঙ্গে বাংলাদেশের সিএসআইআরের সমঝোতা স্মারক সই হয়।

৩. বাংলাদেশের সুপ্রিম কোর্ট ও ভারতের ভুপালে অবস্থিত ন্যাশনাল জুডিসিয়াল অ্যাকাডেমির মধ্যে সমঝোতা স্মারক।

৪. ভারতের রেলওয়ের প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটগুলোতে বাংলাদেশ রেলওয়ের কর্মীদের প্রশিক্ষণের জন্য দুই দেশের রেল মন্ত্রণালয়ের সমঝোতা স্মারক সই হয়।

৫. বাংলাদেশ রেলওয়ের তথ্যপ্রযুক্তিগত সহযোগিতার জন্য ভারত ও বাংলাদেশের রেল মন্ত্রণালয় আরেকটি সমঝোতা স্মারক সই করে।

৬. ভারতের রাষ্ট্রীয় সম্প্রচারমাধ্যম ‘প্রসার ভারতী’র সঙ্গে বাংলাদেশ টেলিভিশনের সমঝোতা স্মারক।

৭. বাংলাদেশের বিটিসিএল ও ভারতের এনএসআইএলের মধ্যে মহাশূন্য প্রযুক্তি ক্ষেত্রে সহযোগিতাবিষয়ক সমঝোতা স্মারক।
সমঝোতা স্মারকের সইয়ের পর দুই দেশের প্রধান যৌথ সংবাদ সম্মেলনে কথা বলেন। প্রথমে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি কথা বলেন। এরপর শেখ হাসিনা কথা বলেন।

এ সময় নরেন্দ্র মোদি বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের বাংলাদেশ গড়ে তোলার চেষ্টায় বাংলাদেশের পাশে থাকবে ভারত। নিজেদের মাঝে অবিশ্বাসের তৈরি করে এমন শক্তির বিরুদ্ধে ৭১ এর চেতনায় কাজ করবে ভারত ও বাংলাদেশ।

আর বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক ‘প্রতিবেশী কূটনীতির’ রোল মডেল। যেকোনো সমস্যায় ভারতকে পাশে পেয়েছে বাংলাদেশ। নরেন্দ্র মোদি ক্ষমতায় থাকাকালীনই কুশিয়ারার মতো সকল অভিন্ন নদীর সমস্যার সমাধান করা হবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

 

I am an undergraduate student study at department of management student university of jagannath. I like those people who are love my country.

আপনার রিএকশন কি?

একই রকম আরও কিছু আর্টিকেল

বাংলাদেশ ছাত্রলীগ

লিখেছেন Shuvo Dey
129
67

বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সুপার ইউনিটখ্যাত "জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের" ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের দুই কর্ণধার এর সাথে ফুলেল শুভেচ্ছা বিনিময়।

আমার ভাবনায় বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি!

৭১ এর পরাজিত শক্তি মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে। দেশ ও দেশের অগ্রগতি থামিয়ে দেওয়া ই তাদের মূল উদ্দেশ্য। আমার এই পোষ্ট টি বঙ্গবন্ধুর সকল আদর্শের সৈনিক কে দয়া করে একটু ধৈর্য সহকারে পড়ুন। যাতে বিএনপি জামায়াতের মিথ্যাচারের বিরুদ্ধে সাধারণ মানুষ কে যথাসময়ে যথাযথ উত্তর দিয়ে জননেত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার

রাষ্ট্র ধর্ম ইসলামঃ নারী সমাজের ওপড় এর প্রভাব।

লিখেছেন ROKIN UDDIN MAHMUD
111
57

বাংলাদেশকে ইসলামীকরণের অপচেষ্টা বহুদিনের। সবচেয়ে মজার কথা হচ্ছে ইসলামীকরণের ফলে যারা সবচেয়ে বেশী ক্ষতিগ্রস্থ হবেন তারাই ইসলামীকরণের অগ্রসৈনিক!