গুজব কাউন্টার

২০০৪ সালে আওয়ামী লীগের সমাবেশে গ্রেনেড হামলার বিএনপি নেতাদের অদ্ভুট প্রতিক্রিয়া

২০০৪ সালে আওয়ামী লীগের সমাবেশে গ্রেনেড হামলার বিএনপি নেতাদের অদ্ভুট প্রতিক্রিয়া

২০০৪ সালে আওয়ামী লীগের সমাবেশে গ্রেনেড হামলার বিএনপি নেতাদের অদ্ভুট প্রতিক্রিয়া

২০০৪ সালে আওয়ামী লীগের সমাবেশে গ্রেনেড হামলার প্রতিক্রিয়ায়-
সংসদে দাঁড়িয়ে খালেদা জিয়ার বলেছিলেন, ‘‘কে তাকে হত্যা করতে চায়?’ এবং আরও বলেছিলেন যে শেখ হাসিনা তার নিজের ভ্যানিটি ব্যাগে করে জনসভায় গ্রেনেড নিয়ে এসেছিলেন।’’

তারেক রহমান বলেছেন, ‘‘এই ২১ আগস্টের হত্যাকান্ডের জন্য শেখ হাসিনা সরাসরি নিজে দায়ী’’

২০০৪ সালে আওয়ামী লীগের সমাবেশে গ্রেনেড হামলার প্রতিক্রিয়ায়-
সংসদে দাঁড়িয়ে খালেদা জিয়ার বলেছিলেন, ‘‘কে তাকে হত্যা করতে চায়?’ এবং আরও বলেছিলেন যে শেখ হাসিনা তার নিজের ভ্যানিটি ব্যাগে করে জনসভায় গ্রেনেড নিয়ে এসেছিলেন।’’

তারেক রহমান বলেছেন, ‘‘এই ২১ আগস্টের হত্যাকান্ডের জন্য শেখ হাসিনা সরাসরি নিজে দায়ী’’

রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, ‘‘২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলার ঘটনার সাথে আওয়ামী লীগ জড়িত’’

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আমি হলফ করে বলতে পারি ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় তারেক রহমান, আবদুস সালাম পিন্টু, লুৎফুজ্জামান বাবরসহ বিএনপির কোনো লোক জড়িত ছিল না।

মুফতি  হান্নান বলেন, ‘‘তারেক রহমানের রাজনৈতিক কার্যালয় হাওয়া ভবনে বিএনপি’র সংসদ সদস্য শাহ মোফাজ্জল হোসেন কায়কোবাদ হুজি আক্রমণকারীদের এবং বিএনপি-জামায়াতের পরিকল্পনাকারীদের মধ্যে বৈঠকের ব্যবস্থা করেন। হাওয়া ভবনে ছাড়াও মোহাম্মদপুরের হুজি’র আস্তানায় এবং ধানমন্ডিতে বিএনপি’র উপমন্ত্রী আবদুস সালাম পিন্টুর বাসভবনে অন্যান্য পরিকল্পনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। ওই সময় তাজউদ্দীন নামের একজন হুজি সদস্য হত্যাকারীদের কাছে গ্রেনেড সরবরাহ করে।’’

 সিআইডি কর্মকর্তা রুহুল আমিন কথিত জজমিয়া কে বলেছিলেন, ‘‘তুই নিজে বাঁচ, পরিবারকে বাঁচা, আমাদেরও বাঁচা।’’

 

অথচ,

তারেক রহমান, সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবর এবং সাবেক জামায়াত সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদসহ ৩০ আসামির বিরুদ্ধে সম্পূরক চার্জশিট জমা দেয়া হয়। ২০১২ সালের মার্চে, ট্রাইব্যুনালে তারেকসহ ৫২ জন আসামিকে হত্যা মামলার অভিযোগে অভিযুক্ত করা হয়, যেখানে ৩৮ জনকে বিস্ফোরক দ্রব্য আইনের অধীনে দায়ের করা মামলায় অভিযুক্ত করা হয়।
হত্যার ঘটনায় ১১জন আসামি বিস্ফোরক মামলায় জড়িত ছিল না। এদের মধ্যে তিনজন সাবেক আইজিপি, সাবেক তিন সিআইডি কর্মকর্তা, সাবেক দুই সিনিয়র পুলিশ কর্মকর্তা, খালেদা জিয়ার ভাগ্নে ডিউক এবং দুই সাবেক সেনা কর্মকর্তা এটিএম আমিন ও সাইফুল ইসলাম জোয়ার্দার অন্তর্ভুক্ত।
মুক্তিযুদ্ধের সময় মানবতাবিরোধী অপরাধে জড়িত থাকায় জামায়াত নেতা মুজাহিদের ইতিমধ্যে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে। একইসাথে সিলেটে সাবেক ব্রিটিশ হাইকমিশনার আনোয়ার চৌধুরীর ওপর গ্রেনেড হামলার মামলায় মুফতি হান্নান ও আরেকজন হুজির মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়। সুতরাং, তাদের নাম ওই মামলা থেকে দেয়া হয়।
গ্রেনেড হামলার ঘটনায় হত্যা ও বোমা বিস্ফোরণের দুই মামলায় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ বর্তমানে ৪৯ জন অভিযুক্ত এবং অনেকের বিচার হচ্ছে। আটজন এখন জামিনে আছেন, আর তারেক রহমানসহ ১৮ জন পলাতক, আর সাবেক বিএনপি মন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবর ও আব্দুস সালাম পিন্টুসহ ২৩ জন কারাগারে।






একটি সীমানাবিহীন ধর্মনিরপেক্ষ মানবিক বিশ্ব প্রতিষ্ঠার স্বপ্নবাজ তরুণ। সাংগঠনিক সম্পাদক, ফরিদগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগ; সভাপতি, ১৫ নং রূপসা উত্তর ইউনিয়ন ছাত্রলীগ, ফরিদগঞ্জ, চাঁদপুর।

আপনার রিএকশন কি?

একই রকম আরও কিছু আর্টিকেল

কেনো ইসরাইলি গোয়েন্দার সঙ্গে নূরের প্রকাশিত ছবিটি এডিট করা নয়

বিদেশে গণঅধিকার পরিষদের সদস্য সচিব নুরুল হক নুরের সঙ্গে ইসরাইলের গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদ-এর সদস্য মেন্দি এন সাফাদির ছবিটি বর্তমানে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আলোচনার বিষয়। ছবিটি সম্পর্কে জানতে চাইলে গণমাধ্যমে দেয়া সাক্ষাৎকারে নুর জানান, এটি এডিট করা এবং মেন্দি এন সাফাদিকে তা তিনি জানেন না। ফলে প্রশ্ন ওঠে ছবিটি আসলেই এডিট করা কিনা। এ ছবিটি এডিট করা হয়েছে কিনা জানতে ফটোগ্রাফি বিভাগে দীর্ঘদিন কর্মরত একাধিক সাংবাদিকের কাছে প্রেরণ করা হয়। এর পাশাপাশি

 নেত্রহীন নেত্র নিউজ কি জঙ্গি অর্থায়নপুষ্ট?

রহস্যজনকভাবে ‘উধাও’ হয়ে যাচ্ছেন আস্ত একটা মানুষ! এসব ‘নিখোঁজ’ ব্যক্তির বিষয়ে কোনো হদিসই পাচ্ছেন না তাদের স্বজনরা! কোনোধরনের পূর্বাভাস ছাড়াই ‘হাওয়ায়’ মিলিয়ে যাচ্ছেন। কোথায় যাচ্ছেন তারা? বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলো প্রায়শই অভিযোগ তুলে গুমের। কিন্তু, আসলেই কি এসব ঘটনা গুমের? অধিকাংশ ঘটনাই দেখা যায়…

লিখেছেন Safkat Hasan Pial
111
57

আমার ভাবনায় বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি!

৭১ এর পরাজিত শক্তি মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে। দেশ ও দেশের অগ্রগতি থামিয়ে দেওয়া ই তাদের মূল উদ্দেশ্য। আমার এই পোষ্ট টি বঙ্গবন্ধুর সকল আদর্শের সৈনিক কে দয়া করে একটু ধৈর্য সহকারে পড়ুন। যাতে বিএনপি জামায়াতের মিথ্যাচারের বিরুদ্ধে সাধারণ মানুষ কে যথাসময়ে যথাযথ উত্তর দিয়ে জননেত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার

নিহত শাওনঃ উচ্ছাস্বিত বিএনপি’র অপপ্রচার।

লিখেছেন ROKIN UDDIN MAHMUD
109
55

বিএনপি'র সরকারবিরোধী মিছিলে গিয়ে পুলিশের গুলির শিকার শাওন! আর তার এই অপমৃত্যু নিয়ে নোংরা রাজনৈতিক খেলায় উচ্ছাস্বিত বিএনপি!